পাকিস্তানে সুযোগ কম, তাই সবাই যুক্তরাষ্ট্রে যাচ্ছে: হাসান

রমিজ রাজা পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে বেশ কিছু ইতিবাচক কাজ করেছেন। ক্রিকেটের অবকাঠামো উন্নয়নে তিনি প্রশংসাও কুড়িয়েছেন। তবে পাকিস্তানে ক্রিকেট খেলার সুযোগ খুবই কম বলে মনে করেন হাসান আলি। আর তাই অনেক প্রতিভাবান ক্রিকেটার দেশের বাইরে চলে যাচ্ছে। এই সমস্যা সমাধানে ক্রিকেটের পরিধি আরও বাড়ানোর পরামর্শ দিয়েছেন এই পেসার।

পিসিবি সম্প্রতি বেশ গুরুত্ব সহকারে ক্রিকেট উন্নয়নের কাজে হাত দিয়েছে। দেশটির ক্রিকেট কাঠামো উন্নয়নে বেশ কিছু পরিকল্পনা করেছে পিসিবি। এগুলো বাস্তবায়ন হলে আমূল পরিবর্ত্ন আসবে পাকিস্তানের ক্রিকেটে তা বলার আর অপেক্ষা রাখে না।

পিসিবি সম্প্রতি ৩৭ কোটি টাকা খরচ করে ড্রপ ইন পিচ বসানোর পরিকল্পনা নিয়েছে। তাছাড়া পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) আদলে যুবাদের জন্য একটি লিগ চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তারপরও ২২ কোটি জনসংখ্যার এই দেশটিতে ক্রিকেটের পরিধি আরও বাড়ানো প্রয়োজন বলে মনে করেন হাসান।

পাকিস্তান ছেড়ে যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমিয়েছেন সামি আসলামের মতো ক্রিকেটার। তিনি পাকিস্তানের জার্সিতে টেস্ট ও ওয়ানডে খেলেছেন। এমন উদাহরণ টেনে হাসান বলেন, ‘আমাদের এখানে অনেক ক্রিকেটার খেলা ছেড়ে দিয়েছে বা ক্রিকেটকে অন্য কাজের পাশাপাশি নিয়েছে। এমনকি কিছু খেলোয়াড় ক্রিকেট খেলতে যুক্তরাষ্ট্রেও গেছে, যা আপনাকে স্পষ্টভাবে বলে দেয় যে, পাকিস্তানে ক্রিকেট খেলার সুযোগ কম।’

পাকিস্তানের ক্রিকেটে বর্তমানে ঘরোয়া ক্রিকেটে বেশ শক্তিশালী। ঘরোয়া থেকে পারফর্ম করেই অনেকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও ভালো করছেন। তবে ঘরোয়াতে ক্রিকেটারের সংখ্যার তুলনায় সুযোগ খুবই কম। তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি, বর্তমান পরিস্থিতি কাটিয়ে ওঠতে কিছু মৌলিক পরিবর্তন দরকার। উদাহরণস্বরূপ, ছয়টি আঞ্চলিক দলকে ১০ বা তার বেশি করা যেতে পারে এবং বিভাগগুলিকে আবার তাদের দল গঠন করতে বলা যেতে পারে। এর ফলে আরও অনেক বেশি ক্রিকেটার খেলার সুযোগ পাবে। যখন এটি করা হবে, তখন পাকিস্তান ক্রিকেট আরও বেশি প্রতিভা খোঁজে পাবে, যা আমাদের ক্রিকেটকে উপকৃত করবে।’

 

অর্থসূচক/এএইচআর



মূল প্রতিবেদনটি এখানে পেতে পারেন।