ভিভো স্মার্টফোন : তরুণদের পছন্দের শীর্ষে

নিজস্ব প্রতিবেদক:

বর্তমানে নতুন প্রজন্ম বা তরুণদের কাছে দৈনন্দিন রুটিনের অন্যতম অনুষঙ্গ হয়ে দাঁড়িয়েছে হাতের স্মার্টফোন। একটা সময় স্মার্টফোনের ক্যামেরায় ছবি তোলা ছিল সবচেয়ে বড় চমক। তবে এখন স্মার্টফোন নিয়ে তরুণদের চাহিদা অনেক। তাদের এসব চাহিদা নিয়ে প্রতিনিয়ত বাজার গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছে বহুজাতিক স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ভিভো। এ গবেষণা বলছে, তরুণদের মধ্যে স্মার্টফোন ফটোগ্রাফি, ভিডিওগ্রাফি ও কনটেন্ট মেকিংয়ের প্রবণতা দিন দিন বেড়েই চলছে।

ভিভো বলছে, ক্রমবর্ধমান এই গ্রাহকশ্রেণীর স্মার্ট মানসিকতাকে প্রাধান্য দিয়ে, ভিভো তাদের ভি এবং ওয়াই সিরিজের স্মার্টফোনগুলোর ক্যামেরায় অত্যাধুনিক ক্যামেরা প্রযুক্তিগুলোকে যুক্ত করেছে।ফলে গত কয়েক বছর ধরে প্রফেশনাল স্মার্টফোন হিসেবে দেশের কনটেন্ট ক্রিয়েটরদের জন্য পছন্দের তালিকায় যুক্ত হয়েছে ভিভো ভি-সিরিজের ভি২০ এবং ভি২১ ডিভাইস। অন্যদিকে ভিভো ওয়াই সিরিজের মধ্যে জনপ্রিয়তা পেয়েছে ভিভো ওয়াই১এস, ওয়াই১২এ, ওয়াই২০ জি, ওয়াই২১, এবং ওয়াই৫৩এস।

এর মধ্যে ভিভো ভি২১ এ রয়েছে ৪৪ মেগাপিক্সেলের ওআইএস প্রযুক্তির সুপার নাইট সেলফি ক্যামেরা, সেলফি স্পটলাইট এবং এআই নাইট অ্যালগরিদমের সাথে এআই নাইট পোর্ট্রইেট প্রযুক্তি। আর ওয়াই৫৩এস দিচ্ছে ৬৪ মেগাপিক্সেলের শক্তিশালী রিয়ার ক্যামেরা।

দেশের তরুণরা ক্যামেরা প্রযুক্তি ছাড়াও, প্রফেশনাল কাজে এবং বিনোদনের মাধ্যম হিসেবেও স্মার্টফোন ব্যবহার করে। এজন্য তাদের প্রয়োজন দীর্ঘ সময় বা টানা কয়েক ঘন্টা নিরবচ্ছিন্ন সাপোর্ট দেয় এমন স্মার্টফোন। তরুণদের এই প্রয়োজন মেটাতে বাজারে রয়েছে ভিভো’র ওয়াই১২এ, ওয়াই২১ এবং ওয়াই৫৩এস স্মার্টফোন। এই ডিভাইসগুলোতে রয়েছে ৫০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি, যা থেকে দীর্ঘ সময় ব্যাটারি সহায়তা পাওয়া যায়। এদিকে ভি২১ এ যুক্ত রয়েছে ৩৩ ওয়াটের ফ্ল্যাশ চার্জিং প্রযুক্তি।

ভিভো’র গবেষণা বলছে, সাম্প্রতিককালে তরুণরা স্লিম এবং স্টাইলিশ ডিজাইনের স্মার্টফোনের প্রতি খুবই আকৃষ্ট। এক্ষেত্রে ভিভো গ্রাহকরা ভিভো ভি২১ এর ডুয়াল টোন স্টেপ এবং আলট্রা স্লিক এজি গ্লাস ডিজাইন পছন্দ করছে।

ভিভো বাংলাদেশের অ্যাসিসট্যান্ট ম্যানেজার (পিআর) রিয়াসাত আহমেদ বলেন, ‘বাংলাদেশে ভিভো’র যাত্রা তার গ্রাহকদের অনুপ্রেরণা এবং বাজার সম্ভাবনার ওপর ভিত্তি করেই চলছে। বাংলাদেশে এত বড় বাজার সম্প্রসারণ করতে পেরে আমরা খুবই আনন্দিত। ভিভো সবসময়ই তাদের গ্রাহকদের প্রাধান্য দিয়ে থাকে। প্রতিনিয়তই নতুন কিছু করতে চাওয়া সৃজনশীল তরুণ প্রজন্মের চাহিদা আমরা বুঝতে পারি। ভিভো ভি এবং ওয়াই সিরিজ আমাদের গ্রাহকদের চাহিদারই পরিপূরক। আমাদের ভিন্ন মাত্রার ভিন্ন ভিন্ন ডিভাইস দিয়ে ভবিষ্যতেও আমরা তারুণ্যকেন্দ্রিক ব্র্যান্ড হিসেবে আমাদের খ্যাতি বজায় রাখব বলে আশা করি।’

জেএ/এফ

মূল প্রতিবেদনটি এখানে পেতে পারেন।